taisirul . mohamed-seddik-el-menchaoui
Nozol : مكية  ,   Other names :
  1. Part
    14
  1. Hizb
    27
  1. Nozol order
    54
  1. Characters count
    2882
  1. Words count
    657
  1. Ayaat count
    99
  1. Pages count
    6
  1. From page
    262
  1. To page
    266

الر ۚ تِلْكَ آيَاتُ الْكِتَابِ وَقُرْآنٍ مُّبِينٍ

আলিফ-লাম-র, এগুলো কিতাবের এবং সুস্পষ্ট কুরআনে আয়াতসমূহ।

Words count : 6 Characters count : 25 الر تلك آيات الكتاب وقرآن مبين

رُّبَمَا يَوَدُّ الَّذِينَ كَفَرُوا لَوْ كَانُوا مُسْلِمِينَ

এমন একটা সময় আসবে যখন কাফিরগণ আক্ষেপ করে বলবে, ‘হায়, আমরা যদি মুসলিম হয়ে যেতাম!’

Words count : 7 Characters count : 30 ربما يود الذين كفروا لو كانوا مسلمين

ذَرْهُمْ يَأْكُلُوا وَيَتَمَتَّعُوا وَيُلْهِهِمُ الْأَمَلُ ۖ فَسَوْفَ يَعْلَمُونَ

ছেড়ে দাও ওদেরকে, ওরা খেতে থাক আর ভোগ করতে থাক, আর (মিথ্যে) আশা ওদেরকে উদাসীনতায় ডুবিয়ে রাখুক, শীঘ্রই ওরা (ওদের ‘আমালের পরিণতি) জানতে পারবে।

Words count : 7 Characters count : 39 ذرهم يأكلوا ويتمتعوا ويلههم الأمل فسوف يعلمون

وَمَا أَهْلَكْنَا مِن قَرْيَةٍ إِلَّا وَلَهَا كِتَابٌ مَّعْلُومٌ

আমি যে জনপদকেই ধ্বংস করেছি তাদের জন্য ছিল লিখিত একটা নির্দিষ্ট সময়।

Words count : 8 Characters count : 31 وما أهلكنا من قرية إلا ولها كتاب معلوم

مَّا تَسْبِقُ مِنْ أُمَّةٍ أَجَلَهَا وَمَا يَسْتَأْخِرُونَ

কোন জাতিই তাদের নির্দিষ্ট কালকে অগ্র-পশ্চাৎ করতে পারে না।

Words count : 7 Characters count : 27 ما تسبق من أمة أجلها وما يستأخرون

وَقَالُوا يَا أَيُّهَا الَّذِي نُزِّلَ عَلَيْهِ الذِّكْرُ إِنَّكَ لَمَجْنُونٌ

তারা বলে, ‘ওহে ঐ ব্যক্তি যার প্রতি কুরআন অবতীর্ণ হয়েছে! তুমি তো অবশ্যই পাগল।

Words count : 9 Characters count : 37 وقالوا يا أيها الذي نزل عليه الذكر إنك لمجنون

لَّوْ مَا تَأْتِينَا بِالْمَلَائِكَةِ إِن كُنتَ مِنَ الصَّادِقِينَ

তুমি সত্যবাদী হলে আমাদের নিকট ফেরেশতাদের হাজির করছ না কেন?’

Words count : 8 Characters count : 34 لو ما تأتينا بالملائكة إن كنت من الصادقين

مَا نُنَزِّلُ الْمَلَائِكَةَ إِلَّا بِالْحَقِّ وَمَا كَانُوا إِذًا مُّنظَرِينَ

যথাযথ কারণ ছাড়া আমি ফেরেশতা পাঠাই না, পাঠালে কাফিরদেরকে আর কোন অবকাশ দেয়া হবে না।

Words count : 9 Characters count : 39 ما ننزل الملائكة إلا بالحق وما كانوا إذا منظرين

إِنَّا نَحْنُ نَزَّلْنَا الذِّكْرَ وَإِنَّا لَهُ لَحَافِظُونَ

নিশ্চয় আমিই কুরআন নাযিল করেছি আর অবশ্যই আমি তার সংরক্ষক।

Words count : 7 Characters count : 29 إنا نحن نزلنا الذكر وإنا له لحافظون

وَلَقَدْ أَرْسَلْنَا مِن قَبْلِكَ فِي شِيَعِ الْأَوَّلِينَ

তোমার পূর্ববর্তী জাতিগুলোর কাছেও আমি রসূল পাঠিয়েছিলাম।

Words count : 7 Characters count : 28 ولقد أرسلنا من قبلك في شيع الأولين

وَمَا يَأْتِيهِم مِّن رَّسُولٍ إِلَّا كَانُوا بِهِ يَسْتَهْزِئُونَ

তাদের কাছে এমন কোন রসূল আসেনি যাকে তারা ঠাট্টা-বিদ্রূপ করেনি।

Words count : 8 Characters count : 33 وما يأتيهم من رسول إلا كانوا به يستهزئون

كَذَٰلِكَ نَسْلُكُهُ فِي قُلُوبِ الْمُجْرِمِينَ

এভাবে আমি এ রকম আচরণ পাপীদের অন্তরে বদ্ধমূল করে দেই।

Words count : 5 Characters count : 23 كذلك نسلكه في قلوب المجرمين

لَا يُؤْمِنُونَ بِهِ ۖ وَقَدْ خَلَتْ سُنَّةُ الْأَوَّلِينَ

তারা এর প্রতি ঈমান আনবে না, পূর্ববর্তী লোকেদেরও এ নিয়ম-নীতি চলে এসেছে।

Words count : 7 Characters count : 26 لا يؤمنون به وقد خلت سنة الأولين

وَلَوْ فَتَحْنَا عَلَيْهِم بَابًا مِّنَ السَّمَاءِ فَظَلُّوا فِيهِ يَعْرُجُونَ

যদি তাদের জন্য আকাশের দরজা খুলে দেয়া হত, আর তারা তাতে উঠতে থাকত,

Words count : 9 Characters count : 39 ولو فتحنا عليهم بابا من السماء فظلوا فيه يعرجون

لَقَالُوا إِنَّمَا سُكِّرَتْ أَبْصَارُنَا بَلْ نَحْنُ قَوْمٌ مَّسْحُورُونَ

তারা অবশ্যই বলত, ‘আমাদের চোখকে বাঁধিয়ে দেয়া হয়েছে, বরং আমাদের উপর যাদু করা হয়েছে।’

Words count : 8 Characters count : 36 لقالوا إنما سكرت أبصارنا بل نحن قوم مسحورون

وَلَقَدْ جَعَلْنَا فِي السَّمَاءِ بُرُوجًا وَزَيَّنَّاهَا لِلنَّاظِرِينَ

আমি আকাশে গ্রহ-নক্ষত্র সৃষ্টি করেছি আর দর্শকদের জন্য তা সুসজ্জিত করে দিয়েছি।

Words count : 7 Characters count : 37 ولقد جعلنا في السماء بروجا وزيناها للناظرين

وَحَفِظْنَاهَا مِن كُلِّ شَيْطَانٍ رَّجِيمٍ

আর প্রত্যেক অভিশপ্ত শয়ত্বান থেকে সেগুলোকে সুরক্ষিত করে দিয়েছি।

Words count : 5 Characters count : 21 وحفظناها من كل شيطان رجيم

إِلَّا مَنِ اسْتَرَقَ السَّمْعَ فَأَتْبَعَهُ شِهَابٌ مُّبِينٌ

কিন্তু কেউ চুরি করে (খবর) শুনতে চাইলে উজ্জ্বল অগ্নিশিখা তার পশ্চাদ্ধাবণ করে।

Words count : 7 Characters count : 29 إلا من استرق السمع فأتبعه شهاب مبين

وَالْأَرْضَ مَدَدْنَاهَا وَأَلْقَيْنَا فِيهَا رَوَاسِيَ وَأَنبَتْنَا فِيهَا مِن كُلِّ شَيْءٍ مَّوْزُونٍ

আর পৃথিবী, আমি সেটাকে বিছিয়ে দিয়েছি আর তাতে পর্বতরাজি সংস্থাপিত করেছি আর তাতে সকল বস্তু উদগত করেছি যথাযথ পরিমাণে।

Words count : 11 Characters count : 52 والأرض مددناها وألقينا فيها رواسي وأنبتنا فيها من كل شيء موزون

وَجَعَلْنَا لَكُمْ فِيهَا مَعَايِشَ وَمَن لَّسْتُمْ لَهُ بِرَازِقِينَ

আর তাতে তোমাদের জীবন ধারণের ব্যবস্থা করেছি আর তাদেরও যাদের রিযকদাতা তোমরা নও।

Words count : 8 Characters count : 34 وجعلنا لكم فيها معايش ومن لستم له برازقين

وَإِن مِّن شَيْءٍ إِلَّا عِندَنَا خَزَائِنُهُ وَمَا نُنَزِّلُهُ إِلَّا بِقَدَرٍ مَّعْلُومٍ

এমন কোন জিনিসই নেই যার ভান্ডার আমার কাছে নেই, কিন্তু আমি সেগুলো আমার জ্ঞান মোতাবেক নির্দিষ্ট পরিমাণে সরবরাহ করে থাকি।

Words count : 11 Characters count : 42 وإن من شيء إلا عندنا خزائنه وما ننزله إلا بقدر معلوم

وَأَرْسَلْنَا الرِّيَاحَ لَوَاقِحَ فَأَنزَلْنَا مِنَ السَّمَاءِ مَاءً فَأَسْقَيْنَاكُمُوهُ وَمَا أَنتُمْ لَهُ بِخَازِنِينَ

আমি বৃষ্টি-সঞ্চারী বাতাস প্রেরণ করি, অতঃপর আসমান থেকে পানি বর্ষণ করি আর তা তোমাদের পান করাই, তোমরা তার স্টোর কীপার নও।

Words count : 12 Characters count : 63 وأرسلنا الرياح لواقح فأنزلنا من السماء ماء فأسقيناكموه وما أنتم له بخازنين

وَإِنَّا لَنَحْنُ نُحْيِي وَنُمِيتُ وَنَحْنُ الْوَارِثُونَ

আমিই জীবন দেই আর মৃত্যু ঘটাই আর আমিই চূড়ান্ত উত্তরাধিকারী।

Words count : 6 Characters count : 29 وإنا لنحن نحيي ونميت ونحن الوارثون

وَلَقَدْ عَلِمْنَا الْمُسْتَقْدِمِينَ مِنكُمْ وَلَقَدْ عَلِمْنَا الْمُسْتَأْخِرِينَ

তোমাদের মধ্যেকার যারা পূর্বে গত হয়ে গেছে আমি তাদেরকে জানি আর পরে যারা আসবে তাদেরকেও জানি।

Words count : 7 Characters count : 42 ولقد علمنا المستقدمين منكم ولقد علمنا المستأخرين

وَإِنَّ رَبَّكَ هُوَ يَحْشُرُهُمْ ۚ إِنَّهُ حَكِيمٌ عَلِيمٌ

অবশ্যই তোমার প্রতিপালক তিনি সববাইকে একত্রিত করবেন, তিনি মহাবিজ্ঞানী, সর্বজ্ঞ।

Words count : 7 Characters count : 25 وإن ربك هو يحشرهم إنه حكيم عليم

وَلَقَدْ خَلَقْنَا الْإِنسَانَ مِن صَلْصَالٍ مِّنْ حَمَإٍ مَّسْنُونٍ

আমি কাল শুষ্ক ঠনঠনে মাটির গাড়া থেকে মানুষকে সৃষ্টি করেছি।

Words count : 8 Characters count : 33 ولقد خلقنا الإنسان من صلصال من حمإ مسنون

وَالْجَانَّ خَلَقْنَاهُ مِن قَبْلُ مِن نَّارِ السَّمُومِ

এর পূর্বে আমি জ্বীনকে আগুনের লেলিহান আগুন থেকে সৃষ্টি করেছি।

Words count : 7 Characters count : 28 والجان خلقناه من قبل من نار السموم

وَإِذْ قَالَ رَبُّكَ لِلْمَلَائِكَةِ إِنِّي خَالِقٌ بَشَرًا مِّن صَلْصَالٍ مِّنْ حَمَإٍ مَّسْنُونٍ

স্মরণ কর যখন তোমার প্রতিপালক ফেরেশতাদেরকে বলেছিলেন, ‘আমি কাল শুষ্ক ঠনঠনে মাটির কাদা থেকে মানুষ সৃষ্টি করছি।

Words count : 12 Characters count : 45 وإذ قال ربك للملائكة إني خالق بشرا من صلصال من حمإ مسنون

فَإِذَا سَوَّيْتُهُ وَنَفَخْتُ فِيهِ مِن رُّوحِي فَقَعُوا لَهُ سَاجِدِينَ

আমি যখন তাকে পূর্ণ মাত্রায় বানিয়ে দেব আর তাতে আমার পক্ষ হতে রূহ ফুঁকে দেব, তখন তোমরা তার প্রতি সাজদায় পড়ে যেও।

Words count : 9 Characters count : 36 فإذا سويته ونفخت فيه من روحي فقعوا له ساجدين

فَسَجَدَ الْمَلَائِكَةُ كُلُّهُمْ أَجْمَعُونَ

তখন ফেরেশতারা সবাই সাজদাহ করল।

Words count : 4 Characters count : 22 فسجد الملائكة كلهم أجمعون

إِلَّا إِبْلِيسَ أَبَىٰ أَن يَكُونَ مَعَ السَّاجِدِينَ

ইবলীস বাদে, সে সাজদাহ্কারীদের দলভুক্ত হতে অস্বীকৃতি জানাল।

Words count : 7 Characters count : 27 إلا إبليس أبى أن يكون مع الساجدين

قَالَ يَا إِبْلِيسُ مَا لَكَ أَلَّا تَكُونَ مَعَ السَّاجِدِينَ

আল্লাহ বলবেন, ‘হে ইবলীস! তোমার কী হল যে তুমি সাজদাহকারীদের দলভুক্ত হলে না?’

Words count : 9 Characters count : 31 قال يا إبليس ما لك ألا تكون مع الساجدين

قَالَ لَمْ أَكُن لِّأَسْجُدَ لِبَشَرٍ خَلَقْتَهُ مِن صَلْصَالٍ مِّنْ حَمَإٍ مَّسْنُونٍ

ইবলীস বলল, ‘আমার কাজ নয় মানুষকে সাজদাহ্ করা যাকে তুমি পচা কর্দমের ঠনঠনে গাড়া থেকে সৃষ্টি করেছ।’

Words count : 11 Characters count : 39 قال لم أكن لأسجد لبشر خلقته من صلصال من حمإ مسنون

قَالَ فَاخْرُجْ مِنْهَا فَإِنَّكَ رَجِيمٌ

তিনি বললেন, ‘বেরিয়ে যাও এখান থেকে, কারণ তুমি হলে অভিশপ্ত।

Words count : 5 Characters count : 20 قال فاخرج منها فإنك رجيم

وَإِنَّ عَلَيْكَ اللَّعْنَةَ إِلَىٰ يَوْمِ الدِّينِ

বিচার দিবস পর্যন্ত তোমার উপর থাকল লা‘নত।’

Words count : 6 Characters count : 24 وإن عليك اللعنة إلى يوم الدين

قَالَ رَبِّ فَأَنظِرْنِي إِلَىٰ يَوْمِ يُبْعَثُونَ

সে বলল, ‘হে আমার প্রতিপালক! পুনরুত্থান দিবস পর্যন্ত আমাকে সময় দিন।’

Words count : 6 Characters count : 24 قال رب فأنظرني إلى يوم يبعثون

قَالَ فَإِنَّكَ مِنَ الْمُنظَرِينَ

তিনি বললেন, ‘তোমাকে সময় দেয়া হল

Words count : 4 Characters count : 17 قال فإنك من المنظرين

إِلَىٰ يَوْمِ الْوَقْتِ الْمَعْلُومِ

সেদিন পর্যন্ত যার নির্দিষ্ট ক্ষণ আমার জানা আছে।’

Words count : 4 Characters count : 18 إلى يوم الوقت المعلوم

قَالَ رَبِّ بِمَا أَغْوَيْتَنِي لَأُزَيِّنَنَّ لَهُمْ فِي الْأَرْضِ وَلَأُغْوِيَنَّهُمْ أَجْمَعِينَ

সে বলল, ‘হে আমার প্রতিপালক! যেহেতু আপনি আমাকে ভ্রান্তপথে ঠেলে দিলেন, কাজেই আমিও পৃথিবীতে মানুষের কাছে পাপকাজকে অবশ্য অবশ্যই সুশোভিত করে দেখাব আর তাদের সবাইকে অবশ্য অবশ্যই বিভ্রান্ত করব।

Words count : 10 Characters count : 46 قال رب بما أغويتني لأزينن لهم في الأرض ولأغوينهم أجمعين

إِلَّا عِبَادَكَ مِنْهُمُ الْمُخْلَصِينَ

কিন্তু তাদের মধ্যে আপনার বাছাই করা বান্দাহদের ছাড়া।’

Words count : 4 Characters count : 20 إلا عبادك منهم المخلصين

قَالَ هَٰذَا صِرَاطٌ عَلَيَّ مُسْتَقِيمٌ

তিনি বললেন- (আমার বাছাই করা বান্দারা যে পথে চলছে) এটাই আমার কাছে পৌঁছার সরল সোজা পথ।

Words count : 5 Characters count : 19 قال هذا صراط علي مستقيم

إِنَّ عِبَادِي لَيْسَ لَكَ عَلَيْهِمْ سُلْطَانٌ إِلَّا مَنِ اتَّبَعَكَ مِنَ الْغَاوِينَ

আমার প্রকৃত বান্দাহ্দের উপর তোমার কোন আধিপত্য চলবে না, তোমাকে যারা অনুসরণ করে সেই বিভ্রান্তরা ছাড়া।

Words count : 11 Characters count : 41 إن عبادي ليس لك عليهم سلطان إلا من اتبعك من الغاوين

وَإِنَّ جَهَنَّمَ لَمَوْعِدُهُمْ أَجْمَعِينَ

আর তাদের সবার জন্য অবশ্যই ওয়া‘দাকৃত স্থান হচ্ছে জাহান্নাম।

Words count : 4 Characters count : 20 وإن جهنم لموعدهم أجمعين

لَهَا سَبْعَةُ أَبْوَابٍ لِّكُلِّ بَابٍ مِّنْهُمْ جُزْءٌ مَّقْسُومٌ

তার সাতটা দরজা আছে। প্রত্যেক দরজার জন্য তাদের মধ্যে শ্রেণী নির্দিষ্ট আছে।’

Words count : 8 Characters count : 30 لها سبعة أبواب لكل باب منهم جزء مقسوم

إِنَّ الْمُتَّقِينَ فِي جَنَّاتٍ وَعُيُونٍ

অবশ্যই মুত্তাকীরা থাকবে জান্নাতে আর নির্ঝরিণীগুলোর মধ্যে।

Words count : 5 Characters count : 20 إن المتقين في جنات وعيون

ادْخُلُوهَا بِسَلَامٍ آمِنِينَ

তাদেরকে বলা হবে, ‘পূর্ণ শান্তি ও নিরাপত্তার সাথে তোমরা এতে প্রবেশ কর।’

Words count : 3 Characters count : 17 ادخلوها بسلام آمنين

وَنَزَعْنَا مَا فِي صُدُورِهِم مِّنْ غِلٍّ إِخْوَانًا عَلَىٰ سُرُرٍ مُّتَقَابِلِينَ

তাদের অন্তর থেকে আমি বিদ্বেষ দূরীভূত করব, তারা ভ্রাতৃবন্ধনে আবদ্ধ হয়ে আসনে মুখোমুখী সমাসীন হবে।

Words count : 10 Characters count : 40 ونزعنا ما في صدورهم من غل إخوانا على سرر متقابلين

لَا يَمَسُّهُمْ فِيهَا نَصَبٌ وَمَا هُم مِّنْهَا بِمُخْرَجِينَ

কোন ক্লান্তি তাদেরকে স্পর্শ করবে না, আর সেখান থেকে তারা কখনও বহিষ্কৃতও হবে না।

Words count : 8 Characters count : 30 لا يمسهم فيها نصب وما هم منها بمخرجين

۞ نَبِّئْ عِبَادِي أَنِّي أَنَا الْغَفُورُ الرَّحِيمُ

আমার বান্দাহদেরকে সংবাদ দাও যে, আমি বড়ই ক্ষমাশীল, বড়ই দয়ালু।

Words count : 6 Characters count : 26 نبئ عبادي أني أنا الغفور الرحيم

وَأَنَّ عَذَابِي هُوَ الْعَذَابُ الْأَلِيمُ

আর আমার শাস্তি- তা বড়ই ভয়াবহ শাস্তি।

Words count : 5 Characters count : 22 وأن عذابي هو العذاب الأليم

وَنَبِّئْهُمْ عَن ضَيْفِ إِبْرَاهِيمَ

তাদেরকে ইবরাহীমের মেহমানের কাহিনী জানিয়ে দাও।

Words count : 4 Characters count : 18 ونبئهم عن ضيف إبراهيم

إِذْ دَخَلُوا عَلَيْهِ فَقَالُوا سَلَامًا قَالَ إِنَّا مِنكُمْ وَجِلُونَ

তারা যখন তার কাছে উপস্থিত হল তখন তারা বলল, ‘তোমার প্রতি সালাম।’ তখন সে বলল, ‘তোমাদের দেখে আমরা শংকিত।’

Words count : 9 Characters count : 37 إذ دخلوا عليه فقالوا سلاما قال إنا منكم وجلون

قَالُوا لَا تَوْجَلْ إِنَّا نُبَشِّرُكَ بِغُلَامٍ عَلِيمٍ

তারা বলল, ‘শংকা করো না, আমরা তোমাকে এক জ্ঞানী পুত্রের সুখবর দিচ্ছি।’

Words count : 7 Characters count : 28 قالوا لا توجل إنا نبشرك بغلام عليم

قَالَ أَبَشَّرْتُمُونِي عَلَىٰ أَن مَّسَّنِيَ الْكِبَرُ فَبِمَ تُبَشِّرُونَ

সে বলল, ‘বার্ধক্য যখন আমাকে স্পর্শ করেছে তখন তোমরা আমাকে সুখবর দিচ্ছ। আচ্ছা, তোমাদের সুখবরটা কী?’

Words count : 8 Characters count : 35 قال أبشرتموني على أن مسني الكبر فبم تبشرون

قَالُوا بَشَّرْنَاكَ بِالْحَقِّ فَلَا تَكُن مِّنَ الْقَانِطِينَ

তারা বলল, ‘তোমাকে আমরা প্রকৃতই সুসংবাদ দিচ্ছি। কাজেই তুমি নিরাশদের অন্তর্ভুক্ত হয়ো না।’

Words count : 7 Characters count : 32 قالوا بشرناك بالحق فلا تكن من القانطين

قَالَ وَمَن يَقْنَطُ مِن رَّحْمَةِ رَبِّهِ إِلَّا الضَّالُّونَ

সে বলল, ‘পথভ্রষ্টরা ছাড়া আর কে তার প্রতিপালকের রহমাত থেকে নিরাশ হয়?’

Words count : 8 Characters count : 29 قال ومن يقنط من رحمة ربه إلا الضالون

قَالَ فَمَا خَطْبُكُمْ أَيُّهَا الْمُرْسَلُونَ

সে বলল, ‘হে আল্লাহর প্রেরিতরা! তোমরা কোন্ কাজে আগমন করেছ?’

Words count : 5 Characters count : 23 قال فما خطبكم أيها المرسلون

قَالُوا إِنَّا أُرْسِلْنَا إِلَىٰ قَوْمٍ مُّجْرِمِينَ

তারা বলল, ‘আমরা এক অপরাধী জাতির বিরুদ্ধে প্রেরিত হয়েছি।

Words count : 6 Characters count : 26 قالوا إنا أرسلنا إلى قوم مجرمين

إِلَّا آلَ لُوطٍ إِنَّا لَمُنَجُّوهُمْ أَجْمَعِينَ

তবে লূতের পরিবার বাদে, তাদের সবাইকে আমরা অবশ্যই রক্ষা করব।

Words count : 6 Characters count : 24 إلا آل لوط إنا لمنجوهم أجمعين

إِلَّا امْرَأَتَهُ قَدَّرْنَا ۙ إِنَّهَا لَمِنَ الْغَابِرِينَ

তবে তার স্ত্রীকে নয়, আমরা (আল্লাহর নির্দেশক্রমে) তার জন্য নির্ধারিত করে দিয়েছি যে, সে পেছনে থেকে যাওয়া লোকেদের মধ্যে শামিল থাকবে।’

Words count : 6 Characters count : 29 إلا امرأته قدرنا إنها لمن الغابرين

فَلَمَّا جَاءَ آلَ لُوطٍ الْمُرْسَلُونَ

আল্লাহর প্রেরিতরা যখন লূত পরিবারের নিকট আসল,

Words count : 5 Characters count : 20 فلما جاء آل لوط المرسلون

قَالَ إِنَّكُمْ قَوْمٌ مُّنكَرُونَ

সে বলল, ‘আপনাদেরকে তো অপরিচিত লোক মনে হচ্ছে।’

Words count : 4 Characters count : 16 قال إنكم قوم منكرون

قَالُوا بَلْ جِئْنَاكَ بِمَا كَانُوا فِيهِ يَمْتَرُونَ

তারা বলল, ‘আমরা তা-ই নিয়ে এসেছি যে ব্যাপারে এ লোকেরা সন্দেহে পতিত ছিল।

Words count : 7 Characters count : 29 قالوا بل جئناك بما كانوا فيه يمترون

وَأَتَيْنَاكَ بِالْحَقِّ وَإِنَّا لَصَادِقُونَ

তোমার কাছে আমরা সত্য নিয়েই এসেছি, আর আমরা অবশ্যই সত্যবাদী।

Words count : 4 Characters count : 23 وأتيناك بالحق وإنا لصادقون

فَأَسْرِ بِأَهْلِكَ بِقِطْعٍ مِّنَ اللَّيْلِ وَاتَّبِعْ أَدْبَارَهُمْ وَلَا يَلْتَفِتْ مِنكُمْ أَحَدٌ وَامْضُوا حَيْثُ تُؤْمَرُونَ

কাজেই কিছুটা রাত থাকতে তুমি তোমার পরিবারবর্গকে নিয়ে বেরিয়ে পড় আর তুমি তাদের পেছনে পেছনে চলতে থাক। তোমাদের কেউ যেন পেছনে ফিরে না তাকায় বরং যেখানে যেতে বলা হচ্ছে চলে যাও।’

Words count : 14 Characters count : 62 فأسر بأهلك بقطع من الليل واتبع أدبارهم ولا يلتفت منكم أحد وامضوا حيث تؤمرون

وَقَضَيْنَا إِلَيْهِ ذَٰلِكَ الْأَمْرَ أَنَّ دَابِرَ هَٰؤُلَاءِ مَقْطُوعٌ مُّصْبِحِينَ

আমি লূতকে এ সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিলাম যে, সকাল হতে না হতেই সমূলে ধ্বংস করা হবে।

Words count : 9 Characters count : 40 وقضينا إليه ذلك الأمر أن دابر هؤلاء مقطوع مصبحين

وَجَاءَ أَهْلُ الْمَدِينَةِ يَسْتَبْشِرُونَ

শহরের লোকেরা আনন্দ সহকারে (লূতের ঘরে) উপস্থিত হল।

Words count : 4 Characters count : 22 وجاء أهل المدينة يستبشرون

قَالَ إِنَّ هَٰؤُلَاءِ ضَيْفِي فَلَا تَفْضَحُونِ

লূত বলল, ‘এরা আমার মেহমান, কাজেই তোমরা আমাকে লাঞ্ছিত করো না।

Words count : 6 Characters count : 23 قال إن هؤلاء ضيفي فلا تفضحون

وَاتَّقُوا اللَّهَ وَلَا تُخْزُونِ

তোমরা আল্লাহকে ভয় কর, আমাকে লজ্জিত করো না।’

Words count : 4 Characters count : 18 واتقوا الله ولا تخزون

قَالُوا أَوَلَمْ نَنْهَكَ عَنِ الْعَالَمِينَ

তারা বলল, দুনিয়াব্যাপী বিষয় নিয়ে কথা বলতে আমরা কি তোমাকে নিষেধ করিনি?’

Words count : 5 Characters count : 23 قالوا أولم ننهك عن العالمين

قَالَ هَٰؤُلَاءِ بَنَاتِي إِن كُنتُمْ فَاعِلِينَ

(লূত (আ.)) বলল, ‘তোমরা যদি কিছু করতেই চাও তাহলে এই আমার (জাতির) কন্যারা আছে।’

Words count : 6 Characters count : 25 قال هؤلاء بناتي إن كنتم فاعلين

لَعَمْرُكَ إِنَّهُمْ لَفِي سَكْرَتِهِمْ يَعْمَهُونَ

তোমার জীবনের শপথ হে নাবী! তারা উন্মত্ত নেশায় আত্মহারা হয়ে পড়েছিল।

Words count : 5 Characters count : 24 لعمرك إنهم لفي سكرتهم يعمهون

فَأَخَذَتْهُمُ الصَّيْحَةُ مُشْرِقِينَ

সূর্যোদয়ের সময়ে এক প্রচন্ড ধ্বনি তাদের উপর আঘাত হানল।

Words count : 3 Characters count : 19 فأخذتهم الصيحة مشرقين

فَجَعَلْنَا عَالِيَهَا سَافِلَهَا وَأَمْطَرْنَا عَلَيْهِمْ حِجَارَةً مِّن سِجِّيلٍ

আর আমি সে জনপদকে উল্টে (উপর-নীচ) করে দিলাম আর তাদের উপর পাকানো মাটির প্রস্তর বর্ষণ করলাম।

Words count : 8 Characters count : 41 فجعلنا عاليها سافلها وأمطرنا عليهم حجارة من سجيل

إِنَّ فِي ذَٰلِكَ لَآيَاتٍ لِّلْمُتَوَسِّمِينَ

এতে অবশ্যই অন্তর্দৃষ্টিসম্পন্ন লোকেদের জন্য অনেক নিদর্শন রয়েছে।

Words count : 5 Characters count : 21 إن في ذلك لآيات للمتوسمين

وَإِنَّهَا لَبِسَبِيلٍ مُّقِيمٍ

এটি মানুষের চলাচল পথের পাশেই বিদ্যমান।

Words count : 3 Characters count : 15 وإنها لبسبيل مقيم

إِنَّ فِي ذَٰلِكَ لَآيَةً لِّلْمُؤْمِنِينَ

মু’মিনদের জন্য এতে বড়ই নিদর্শন রয়েছে।

Words count : 5 Characters count : 19 إن في ذلك لآية للمؤمنين

وَإِن كَانَ أَصْحَابُ الْأَيْكَةِ لَظَالِمِينَ

আর আয়কাহবাসীরাও অবশ্যই যালিম ছিল।

Words count : 5 Characters count : 24 وإن كان أصحاب الأيكة لظالمين

فَانتَقَمْنَا مِنْهُمْ وَإِنَّهُمَا لَبِإِمَامٍ مُّبِينٍ

কাজেই তাদের উপর প্রতিশোধ নিয়েছিলাম, এ দু’টো জনপদই প্রকাশ্য পথের উপর অবস্থিত।

Words count : 5 Characters count : 28 فانتقمنا منهم وإنهما لبإمام مبين

وَلَقَدْ كَذَّبَ أَصْحَابُ الْحِجْرِ الْمُرْسَلِينَ

হিজর-এর লোকেরাও রসূলদেরকে অমান্য করেছিল।

Words count : 5 Characters count : 25 ولقد كذب أصحاب الحجر المرسلين

وَآتَيْنَاهُمْ آيَاتِنَا فَكَانُوا عَنْهَا مُعْرِضِينَ

আমি তাদেরকে আমার নিদর্শনাবলী দিয়েছিলাম কিন্তু তাত্থেকে তারা মুখ ফিরিয়েই রেখেছিল।

Words count : 5 Characters count : 30 وآتيناهم آياتنا فكانوا عنها معرضين

وَكَانُوا يَنْحِتُونَ مِنَ الْجِبَالِ بُيُوتًا آمِنِينَ

তারা পাহাড় খোদাই করতঃ ঘর তৈরি করে নিজেদেরকে নিরাপদ ভাবত।

Words count : 6 Characters count : 30 وكانوا ينحتون من الجبال بيوتا آمنين

فَأَخَذَتْهُمُ الصَّيْحَةُ مُصْبِحِينَ

অতঃপর এক সকালে প্রচন্ড ধ্বনি তাদের উপর আঘাত হানল।

Words count : 3 Characters count : 19 فأخذتهم الصيحة مصبحين

فَمَا أَغْنَىٰ عَنْهُم مَّا كَانُوا يَكْسِبُونَ

তাদের উপার্জন তাদের কোন কাজে আসল না।

Words count : 6 Characters count : 24 فما أغنى عنهم ما كانوا يكسبون

وَمَا خَلَقْنَا السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضَ وَمَا بَيْنَهُمَا إِلَّا بِالْحَقِّ ۗ وَإِنَّ السَّاعَةَ لَآتِيَةٌ ۖ فَاصْفَحِ الصَّفْحَ الْجَمِيلَ

আমি আসমানসমূহ, যমীন আর এ দু’য়ের মাঝে যা কিছু আছে প্রকৃত উদ্দেশ্য ছাড়া সৃষ্টি করিনি। ক্বিয়ামাত অবশ্যই আসবে, কাজেই উত্তম পন্থায় (তাদেরকে) এড়িয়ে যাও।

Words count : 14 Characters count : 69 وما خلقنا السماوات والأرض وما بينهما إلا بالحق وإن الساعة لآتية فاصفح الصفح الجميل

إِنَّ رَبَّكَ هُوَ الْخَلَّاقُ الْعَلِيمُ

নিশ্চয় তোমার প্রতিপালক তিনি সর্বস্রষ্টা, সর্বজ্ঞ।

Words count : 5 Characters count : 19 إن ربك هو الخلاق العليم

وَلَقَدْ آتَيْنَاكَ سَبْعًا مِّنَ الْمَثَانِي وَالْقُرْآنَ الْعَظِيمَ

আমি তোমাকে দিয়েছি পুনঃ পুনঃ আবৃত্ত সপ্ত আয়াত আর মহা কুরআন।

Words count : 7 Characters count : 36 ولقد آتيناك سبعا من المثاني والقرآن العظيم

لَا تَمُدَّنَّ عَيْنَيْكَ إِلَىٰ مَا مَتَّعْنَا بِهِ أَزْوَاجًا مِّنْهُمْ وَلَا تَحْزَنْ عَلَيْهِمْ وَاخْفِضْ جَنَاحَكَ لِلْمُؤْمِنِينَ

তুমি দুনিয়ার দ্রব্য সামগ্রীর প্রতি চোখ তুলে তাকিও না যা আমি তাদের বিভিন্ন লোকেদের দিয়েছি। (তারা ভুল চিন্তা ও ভুল কর্মের মাধ্যমে নিজেদের ভয়াবহ পরিণাম ডেকে আনছে, এমতাবস্থায়) তাদের জন্য তুমি দুঃখ করো না, আর মু’মিনদের জন্য তোমার (অনুকম্পার) ডানা মেলে দাও।

Words count : 15 Characters count : 63 لا تمدن عينيك إلى ما متعنا به أزواجا منهم ولا تحزن عليهم واخفض جناحك للمؤمنين

وَقُلْ إِنِّي أَنَا النَّذِيرُ الْمُبِينُ

আর বলে দাও, ‘আমি তো স্পষ্ট ভাষায় সতর্ককারী মাত্র।’

Words count : 5 Characters count : 21 وقل إني أنا النذير المبين

كَمَا أَنزَلْنَا عَلَى الْمُقْتَسِمِينَ

যে ধরনের সতর্কীকরণ পাঠানো হয়েছিল (আল্লাহর কিতাবকে) বিভক্তকারী (ইয়াহূদী ও খ্রীস্টান)দের উপর।

Words count : 4 Characters count : 21 كما أنزلنا على المقتسمين

الَّذِينَ جَعَلُوا الْقُرْآنَ عِضِينَ

যারা কুরআনকে (নিজেদের খেয়াল খুশিমত) ভাগ ভাগ করে ফেলেছে (যেটা ইচ্ছে মানছে, যেটা ইচ্ছে অমান্য করছে)।

Words count : 4 Characters count : 20 الذين جعلوا القرآن عضين

فَوَرَبِّكَ لَنَسْأَلَنَّهُمْ أَجْمَعِينَ

অতএব শপথ তোমার রব্বের! তাদের সববাইকে অবশ্য অবশ্যই আমি জিজ্ঞেস করব ।

Words count : 3 Characters count : 19 فوربك لنسألنهم أجمعين

عَمَّا كَانُوا يَعْمَلُونَ

তারা যা করছে সে সম্পর্কে।

Words count : 3 Characters count : 14 عما كانوا يعملون

فَاصْدَعْ بِمَا تُؤْمَرُ وَأَعْرِضْ عَنِ الْمُشْرِكِينَ

কাজেই তোমাকে যে বিষয়ের হুকুম দেয়া হয়েছে তা জোরে শোরে প্রকাশ্যে প্রচার কর, আর মুশরিকদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নাও।

Words count : 6 Characters count : 27 فاصدع بما تؤمر وأعرض عن المشركين

إِنَّا كَفَيْنَاكَ الْمُسْتَهْزِئِينَ

(সেই) ঠাট্টা-বিদ্রূপকারীদের বিরুদ্ধে তোমার জন্য আমিই যথেষ্ট

Words count : 3 Characters count : 19 إنا كفيناك المستهزئين

الَّذِينَ يَجْعَلُونَ مَعَ اللَّهِ إِلَٰهًا آخَرَ ۚ فَسَوْفَ يَعْلَمُونَ

যারা আল্লাহর সাথে অন্যকেও ইলাহ বানিয়ে নিয়েছে, (কাজেই শিরকের পরিণতি কী) শীঘ্রই তারা জানতে পারবে।

Words count : 8 Characters count : 34 الذين يجعلون مع الله إلها آخر فسوف يعلمون

وَلَقَدْ نَعْلَمُ أَنَّكَ يَضِيقُ صَدْرُكَ بِمَا يَقُولُونَ

আমি জানি, তারা যে সব কথা-বার্তা বলে তাতে তোমার মন সংকুচিত হয়।

Words count : 7 Characters count : 28 ولقد نعلم أنك يضيق صدرك بما يقولون

فَسَبِّحْ بِحَمْدِ رَبِّكَ وَكُن مِّنَ السَّاجِدِينَ

কাজেই প্রশংসা সহকারে তুমি তোমার প্রতিপালকের পবিত্রতা ঘোষণা কর, আর সাজদাহকারীদের দলভুক্ত হও।

Words count : 6 Characters count : 24 فسبح بحمد ربك وكن من الساجدين

وَاعْبُدْ رَبَّكَ حَتَّىٰ يَأْتِيَكَ الْيَقِينُ

আর তোমার রব্বের ‘ইবাদাত করতে থাক তোমার সুনিশ্চিত ক্ষণের (অর্থাৎ মৃত্যুর) আগমন পর্যন্ত।

Words count : 5 Characters count : 22 واعبد ربك حتى يأتيك اليقين